Montage

যাজ্ঞসেনী

যাজ্ঞসেনী

বেবী সাউ

এই যে সুসময়, অথবা কদাকার তাহাকে তুমি ডাকো শ্রী নন্দিনী!
আঁচল ভরা ফুলে, মাথায় চুড়োখোঁপা তুমি কি তাহাকেও ডুবাবে প্রেমে?

এ পথে বালুকণা, এ পথ নির্মম হেঁটেছে যারা, তারা তো ভিক্ষুক…
সাধন ছড়াবে না? এ মরু প্রান্তরে? কেহ কি বাজাবে না জিভের বাঁশি!
নিভেছে সাঁঝ আলো, অকালে ঝড় জল, হাতের কাছে নেই ধারালো কিছু
এ হেন রাত-বেলা, বেরিয়ে পড়ে যদি, দংশনের ক্ষত, শঙখচূড়!

কে যেন ভয়ানক! ভীষণ সন্তাপে আগুন জ্বেলেছিল প্রাচীরময়!
পুড়লো ভাটিগান, নদীর উপকথা। বদলা মৃত্যুর ‘মৃত্যু চাই’…
কঁকিয়ে উঠেছিল গোপন সুড়ঙ্গ চিহ্ন মুক্তির অভিজ্ঞান
এ দুষ্মন্ত যে, দুর্যোধন মুখ অথবা তাহাদের আধার নেই
কে যেন পরিচয়! যেন কে আশ্বাস, ছড়ায় চারপাশে আউশ খই
তুমিও দয়াময় তুমিই নিষ্ঠুর বস্ত্রহরণের সাবেক কাল…

এই যে সুসময় অথবা কদাকার তাহাকে তুমি ডাকো শ্রী নন্দিনী?

রক্তে ভেজা মুখ, কণ্ঠে নালি কাটা বিঁধেছে বুকময় নখের দাগ
কাজল এলোমেলো, যোনীও ক্ষতময়; জরায়ু দেবে তাকে মাতৃ-স্বাদ?
অলীক সব রাত, সবই যে মায়াময়, কাহাকে দোষ দেবে সান্ধ্য কাল!
অন্ধকার সব, অন্ধকার শব… আধার ঘনায়েছে যমুনা পারে…

বাঁশীটি প্রতিবেশী, তুমিও ছলময়, তাহাকে নাম দেবে অহল্যার!

পুড়েছে দেহ আর আঁচলে ঢেউ ওড়ে নিজেই কাণ্ডারী বইবে নাও…
যে ছিল লাঙলের, বিরহী কাতরা সে, রাধিকা নামে মেয়ে বাঁশিটি খোলে…
নিজেই লিখে ফেলে নিজের কথকতা মৃত এ শহরের ঘাতক কথা
ঠোঁটে সে গান লেখে হৃদয়ে বহমান আগুন জ্বালানোর যে স্বরলিপি

এই যে সুসময় এই যে সুসময় নিজেই নাম রাখে শ্রী নন্দিনী…

1

Baby Shaw

জন্ম, ঝাড়গ্রাম জেলার এক প্রত্যন্ত গ্রামে। পারিবারিক কর্মসূত্রে বর্তমান নিবাস জামশেদপুরে। প্রথম শ্রেণিতে প্রথম হয়ে স্নাতকোত্তর। ছোটবেলা থেকেই কবিতা এবং ইতিহাসের প্রতি আকর্ষণ। লোকসাহিত্য, ইতিহাস এবং লোকসংস্কৃতির প্রতি আগ্রহ পরবর্তীকালে রূপ নেয় অনুসন্ধান এবং গবেষণায়।

 

কবিতার মধ্যে দিয়েই আত্মপ্রকাশ। প্রথম কাব্যগ্রন্থ বনঘাঘরা (২০১৫) দিয়েই চমকে দেওয়া শুরু। তার পর একে একে বেরিয়েছে ইউথেনেশিয়া (২০১৬), গান লেখে লালনদুহিতা ( ২০১৮), ছয় মহলা বাড়ি ( ২০১৮), একান্ন শরীরে ভাঙো ( ২০১৯) এবং হেমন্তের অন্নপূর্ণা (২০১৯)। কবিতার লেখার পাশাপাশি বিভিন্ন ছোট কাগজ এবং দৈনিকে প্রবন্ধ, নিবন্ধ এবং গবেষণামূলক রচনা লেখার শুরু। ছোটবেলা থেকেই ঝাড়গ্রাম এবং দক্ষিণ-পশ্চিম বাংলার সীমান্ত এলাকায় সুবর্ণরেখা নদীর দুই পাড়ের সুবর্ণরৈখিক ভাষা ও সংস্কৃতি নিয়ে আগ্রহ। এই সব এলাকার প্রান্তিক মহিলাদের মধ্যে বিয়ে থেকে শোক, বিষাদ থেকে দুঃখের নানা কিছু ঘটনার বর্ণনায় প্রচলিত কাঁদনাগীত সংগ্রহের জন্য চার পাঁচ বছর ধরে নিরন্তর গবেষণা। গ্রামে গ্রামে ঘুরে কাঁদনাগীত সংগ্রহ, তাঁদের সঙ্গে থেকে তাঁদের জীবনযন্ত্রণার সঙ্গে পরিচিতির পাশাপাশি, এই সব গানের কাব্যগুণ, ইতিহাস এবং সংস্কৃতি নিয়ে নিরন্তর চর্চার ফলশ্রুতিতে ২০১৯-এই প্রকাশ পায় গবেষণামূলক গ্রন্থ – কাঁদনাগীত, সংগ্রহ ও ইতিবৃত্ত। একশোর বেশি কাঁদনাগীত সংগ্রহ করা ছাড়াও সুবর্ণরৈখিক ভাষা থেকে প্রচলিত বাংলা ভাষায় সেই সব কবিতায় অনুবাদ করা আছে মূল গানের পাশাপাশি। কবি, বর্তমানে বিভিন্ন ভাষার কবিতার অনুবাদ, বাংলার অনুবাদ সাহিত্যের ইতিহাস রচনা এবং মন্দির-মসজিদের স্থাপত্য ও অলংকরণ নিয়ে কাজের পাশাপাশি ঝাড়খণ্ডের আকাশবাণীতে কর্মরত।

 

পেয়েছেন কৃত্তিবাস মাসিক দীপক মজুমদার পুরস্কার ২০১৯, এখন শান্তিনিকেতন পদ্য সম্মান, শব্দপথ যুব পুরস্কার ২০১৯, রাঢ় বনতলি সম্মান, বইতরণীপুরস্কার, জামশেদপুর সিংভূম বঙ্গীয় অ্যাসোসিয়েশন দ্বারা বঙ্গ সমাজ রত্ন ২০২০ এবং বাংলা একাদেমি তাপসীবসুস্মারকসম্মান২০২০

View All Authors >>

One thought on “যাজ্ঞসেনী”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 + 4 =

Supported by:

skgf
skgf

Editor's Picks

Archive

Select a month to view the archive.

Back to Top